Runner Automobiles
Sea Pearl Beach Resort & SPA Ltd
Share Business Logo
bangla fonts
facebook twitter google plus rss

বেড়া উপজেলায় সবার আগে নির্বাচনের মাঠে আফজাল হোসেন


২৭ জানুয়ারি ২০১৯ রবিবার, ১২:৪২  পিএম

পাবনা প্রতিনিধি


বেড়া উপজেলায় সবার আগে নির্বাচনের মাঠে আফজাল হোসেন

উপজেলা নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) ঘোষণার পরপরই পাবনায় সবার আগে মাঠে নেমে গেছেন আওয়ামী লীগ নেতা আফজাল হোসেন। তিনি জেলার বেড়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চান।  

দলীয় মনোয়ন পাওয়ার আশায় উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় দিনরাত গণসংযোগ করছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের এ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।
   
স্থানীয় নেতাকর্মীদের কাছে তুমুল জনপ্রিয় আফজাল হোসেন এবার মনোনয়ন পাবেন বলে তাদের আশা। তারা  জানান, আফজাল হোসেন একজন জনপ্রিয়, জনদরদি ও দানশীল নেতা হিসেবে পরিচিত। তিনি বেড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক থাকা অবস্থায় ২০০৩ সালে বিপুল ভোটে বেড়া উপজেলার রূপপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ২০০৯ সালে বেড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে মাত্র ২০৪ ভোটে পরাজিত হন। ওই সময়ে আফজাল হোসেনের হেরে যাওয়া নিয়ে সারাদেশে হৈ-চৈ হয়।

বেড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের একজন সহ-সভাপতি বলেন, সে সময় ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে আফজালকে কোণঠাসা করা না হলে তিনি এখন এমপি প্রার্থী হতেন।

রাজনৈতিক সূত্র জানায়, রূপপুর গ্রামের সল্ফ্ভ্রান্ত রাজনৈতিক পরিবারে জন্ম আফজাল হোসেনের। তিনি ঢাকায় বিভিন্ন ব্যবসায় জড়িত থাকলেও এলাকার মানুষের সুখ-দুঃখে পাশে থাকতে ভালোবাসেন। এখন প্রতিদিনই বেড়া উপজেলার বিভিন্ন স্থানে তিনি গণসংযোগ করে যাচ্ছেন। ১৯৯০ থেকে ১৯৯৫ সাল পর্যন্ত বেড়া উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়কসহ বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেছেন আফজাল হোসেন। ১৯৯৫

থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত বেড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, ২০১২ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন।
 
আফজাল হোসেন বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা ও  জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব সময়ই ত্যাগী নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন করেন। সেই বিবেচনায় তিনি বেড়া উপজেলা পরিষদে নির্বাচনে আরেকবার তাকে মনোনয়ন দেবেন।

তিনি জানান, পাবনা-১ আসনের এমপি অ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু, পাবনা-২ আসনের এমপি আহমেদ ফিরোজ কবির এবং বেড়ার পৌর মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আলহাজ আব্দুল বাতেনসহ সব পর্যায়ের নেতাকর্মী ২০০৯ সালের উপজেলা নির্বাচনে তার বঞ্চিত হওয়ার খবর জানেন। তার আশা, এবার সবাই তার ব্যাপারে সহায়তা করবেন।

শেয়ারবিজনেস24.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: