JAC EnergyPac Power
dominage
Share Business Logo
bangla fonts
facebook twitter google plus rss

সর্বোচ্চ দর বাড়ায় ঝুঁকি দুর্বল শেয়ারে


১৭ অক্টোবর ২০২০ শনিবার, ১০:৫৯  এএম

নিজস্ব প্রতিবেদক

শেয়ার বিজনেস24.কম


সর্বোচ্চ দর বাড়ায় ঝুঁকি দুর্বল শেয়ারে

সমাপ্ত সপ্তাহজুড়ে দেশের শেয়ারবাজারে পতনের ধারা অব্যাহত থাকলেও শেয়ারের দাম বাড়ার ক্ষেত্রে দাপট দেখিয়েছে পচা ‘জেড’ গ্রুপ এবং দুর্বল ‘বি’ গ্রুপের প্রতিষ্ঠান। 

গত সপ্তাহজুড়ে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেনে অংশ নেয়া ২৬২টি বা ৭৩ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের দরপতন হয়েছে। এমন পতনের বাজারে দাম বাড়ার শীর্ষ ১০টি স্থানের মধ্যে পাঁচটিই দখল করেছে ‘জেড’ গ্রুপের প্রতিষ্ঠান। এছাড়া দাম বাড়ার শীর্ষ ১০-এ থাকা বাকি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দুটি রয়েছে ‘বি’ গ্রুপের প্রতিষ্ঠান। আর ভালো কোম্পানি বা ‘এ’ গ্রুপের প্রতিষ্ঠান আছে তিনটি।

সপ্তাহজুড়ে পুঁজিবাজারের বিনিয়োগকারীদের কাছে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে চাহিদার শীর্ষে ছিল ‘জেড’ গ্রুপের প্রতিষ্ঠান সাভার রিফ্যাক্টরিজ। ফলে সপ্তাহজুড়ে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে এই কোম্পানিটির শেয়ার দামে বড় ধরনের উত্থান ঘটেছে।

মূল্যে বড় ধরনের উত্থান হওয়ার পরও বিনিয়োগকারীদের একটি অংশ কোম্পানিটির শেয়ার বিক্রি করতে রাজি হননি। ফলে সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হয়েছে মাত্র দুই কোটি ৪৭ লাখ ৮৫ হাজার টাকা। আর প্রতি কার্যদিবসে গড়ে লেনদেন হয়েছে ৪৯ লাখ ৫৭ হাজার টাকা।

এদিকে কোম্পানিটির শেয়ারের দাম সপ্তাহজুড়ে বেড়েছে ৩০ দশমিক ২১ শতাংশ। টাকার অঙ্কে বেড়েছে ৭৯ টাকা ৩০ পয়সা। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস শেষে কোম্পানিটির শেয়ারের দাম দাঁড়িয়েছে ৩৪১ টাকা ৮০ পয়সা, যা আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল ২৬২ টাকা ৫০ পয়সা।

শেয়ারের এমন দাম বাড়লেও কোম্পানিটির লভ্যাংশের ইতিহাস মোটেও ভালো না। ১৯৮৮ সালে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়া কোম্পানিটি শেষ কবে শেয়ারহোল্ডারদের লভ্যাংশ দিয়েছে সে বিষয়ে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) কোনো তথ্য প্রকাশ করেনি।

তবে ডিএসইর মাধ্যমে প্রকাশিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, কোম্পানিটি ২০১৪ সাল থেকেই লোকসানে রয়েছে। এমনকি সর্বশেষ প্রকাশিত ২০১৯ সালের জুলাই থেকে চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত আর্থিক প্রতিবেদনেও কোম্পানিটির লোকসানের কথা উল্লেখ রয়েছে। এ সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ৬৫ পয়সা।

ডিএসইর তথ্য অনুযায়ী, কোম্পানিটির মোট শেয়ারের ৫০ দশমিক ৬৮ শতাংশ শেয়ার রয়েছে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের হাতে। বাকি শেয়ারের মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ৪২ দশমিক ১৪ শতাংশ এবং প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ৭ দশমিক ১৮ শতাংশ শেয়ার আছে।

দাম বাড়ার শীর্ষ তালিকায় দ্বিতীয় স্থানটি দখল করেছে ‘বি’ গ্রুপের ন্যাশনাল ফিড। সপ্তাহজুড়ে এই কোম্পানিটির শেয়ারের দাম বেড়েছে ২৯ দশমিক ৪১ শতাংশ। পরের স্থানটিতে রয়েছে ‘এ’ গ্রুপের এশিয়া প্যাসিফিক জেনারেল ইন্স্যুরেন্স। সপ্তাহজুড়ে এ কোম্পানিটির শেয়ার দাম বেড়েছে ২৮ দশমিক ৬৫ শতাংশ।

অবশ্য এর পরের দুটি স্থানে রয়েছে পচা ‘জেড’ গ্রুপের প্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে গোল্ডেন সন’র শেয়ার দাম বেড়েছে ১৯ দশমিক শূন্য ৫ শতাংশ এবং শ্যামপুর সুগার মিলের শেয়ার দাম বেড়েছে ১৪ দশমিক ৯৫ শতাংশ। ১৪ দশমিক ৮১ শতাংশ দাম বেড়ে পরের স্থানে রয়েছে ‘বি’ গ্রুপের খান ব্রাদার পিপি ওভেন ব্যাগ।

এছাড়া গত সপ্তাহে দাম বাড়ার শীর্ষ তালিকায় স্থান করে নেয়া ‘এ’ গ্রুপের প্রতিষ্ঠান জিপিএইচ ইস্পাতের ১৩ দশমিক ৭৯ শতাংশ, জিকিউ বলপেনের ১৩ দশমিক ২১ শতাংশ এবং ‘জেড’ গ্রুপের প্রতিষ্ঠান মেঘনা পেট ইন্ডাস্ট্রিজের শেয়ার দাম বেড়েছে ১২ দশমিক ৯৩ শতাংশ।

শেয়ারবিজনেস24.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: