facebook twitter You Tube rss bangla fonts
Walton

শরীয়তপুরে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ২৫, আটক-৮


১৯ নভেম্বর ২০১৬ শনিবার, ০৯:০১  পিএম

শরীয়তপুর করেসপন্ডেন্ট

শেয়ার বিজনেস24.কম


শরীয়তপুরে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ২৫, আটক-৮

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে শরীয়তপুরের জাজিরায় স্থানীয় আওয়ামী লীগের দুগ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছেন।

আহতদের জাজিরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। গুরুতর আহত ৩ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সংঘর্ষের সময় প্রায় অর্ধশতাধিক ককটেলের বিষ্ফোরণ ঘটায় সংঘর্ষকারীরা। এ সময় প্রতিপক্ষের লোকেরা দুটি ঘর ভাঙচুর করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ শর্টগানের ৬ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে জাজিরা থানা পুলিশ ৮ জনকে আটক করেছে। এ নিয়ে দু’গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করায় এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

আহত জাফর বেপারী, নবুয়াত বেপারী, জাজিরা থানা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘ দিন ধরে শরীয়তপুর জেলার জাজিরা পৌরসভার টিএনটি মোড় বাজার বণিক সমিতির সভাপতি ও আওয়ামী লীগ সমর্থক আব্দুস সাত্তার বেপারী এবং জাজিরা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আবু ফকিরের মধ্যে টিএনটি মোড় বাজার বণিক সমিতি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে শনিবার দুপুরে আবু ফকির ও সাত্তার বেপারীর মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে হাতাহাতি হয়। এ সময় সাত্তার বেপারীর ছেলে হৃদয় এগিয়ে গেলে রড দিয়ে মাথায় আঘাত করে গুরুতর জখম করা হয়। এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে দু’গ্রুপের সমর্থকরা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া এবং সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এ সময় সংঘর্ষকারীরা অর্ধশতাধিক ককটেল বোমার বেষ্ফোরণ ঘটিয়ে ত্রাস সৃস্টি করে। ধাওয়া, পাল্টা ধাওয়া এবং সংঘর্ষে  রেহানা বেগম, জহির, সুমন, হৃদয়, জাফর, নবুয়াত সেলিম, রানা, জিয়া, সোহেল বেপারী, ফজল ফকির আবু ফকির, বাদশা ঢালী, সোনা মিয়া ফকিরসহ উভয় গ্রুপের অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছেন।

আহতদেরকে জাজিরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় হৃদয়, সুমন ও জহিরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এ সময় জাজিরা পৌরসভার টিএনটি মোড় বাজার বণিক সমিতির সভাপতি ও আওয়ামীলীগ সমর্থক আব্দুস সাত্তার বেপারী ও রতন বেপারীর বাড়ীতে হামলা চালিয়ে দুটি ঘর ভাঙচুর করেছে। খবর পেয়ে জাজিরা থানা পুলিশ উভয় গ্রুপকে ছত্রভঙ্গ ও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৬ রাউন্ড শর্টগানের ফাঁকা গুলি ছোড়েন। এ ঘটনায় জাজিরা থানা পুলিশ সংঘর্ষে জড়িত থাকা সন্দেহে ৮ জনকে  আটক করেছে।

জাজিরা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আবু ফকির বলেন, আমার সর্মথক মোবারক বেপারী সকালে বাজারে সার ক্রয় করতে গেলে তাকে টিএনটি মোড় বাজার বণিক সমিতির সভাপতি সাত্তার বেপারী অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। আমি তার কাছে বিষয়টি জানতে গেলে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে লোহার রড দিয়ে আমাকে আঘাত করে। পরে তারা ককটেল বিষ্ফোরণ ঘটিয়ে আমাদের উপর হামলা চালায়। এ নিয়ে সংঘর্ষ বাঁধে।

জাজিরা পৌরসভার টিএনটি মোড় বাজার বণিক সমিতির সভাপতি ও আওয়ামীলীগ সমর্থক আব্দুস সাত্তার বেপারী বলেন, বাজারের কমিটি নিয়ে শুক্রবার রাতে বাজার বণিক সমিতির সাধারন সম্পাদক আতাউর রহমান মুকুলের দোকানে বসা হয়। সেখানে নতুন কমিটি গঠন করা নিয়ে কথা হয়েছে।  আজ শনিবার সকালে আমি দোকানে যাওয়ার পর আবু ফকির বলে আমি যেভাবে বলি সেভাইে কমিটি হবে এ কথা বলেই আমার হামলা করে। আমার ছেলে এগিয়ে গেলে তাকে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে ফেলে। পরে তারা ককটেল বিষ্ফোরণ ঘটিয়ে আমার বাড়ী ঘরে হামলা চালায়।

জাজিরা থানার (ওসি) তদন্ত মোঃ এনামূল হক বলেন, টিএনটি মোড় বাজার বণিক সমিতির আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে উভয় গ্রুপের কয়েকজন আহত হয়। আমরা পরিস্থিতি নিরয়ন্ত্রণে আনতে ৬ রাউন্ড সর্টগানের ফাঁকাগুলি ছুড়ি। এ ঘটনায় আটজনকে আটক করা হয়েছে।   

শেয়ারবিজনেস24.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:

গ্রামবাংলা -এর সর্বশেষ