Runner Automobiles
Sea Pearl Beach Resort & SPA Ltd
Share Business Logo
bangla fonts
facebook twitter google plus rss

সবচেয়ে বেশি বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে গ্রামীণফোনে


২৮ জুলাই ২০১৯ রবিবার, ০২:৫৪  পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক


সবচেয়ে বেশি বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে গ্রামীণফোনে

চলতি বছরের মে মাসের শেষেও চামড়াজাত পণ্য খাতের কোম্পানি লিগ্যাসি ফুটওয়্যারে বিদেশি কিংবা প্রবাসী বাংলাদেশিদের শেয়ার ছিল প্রায় আট লাখ। কোম্পানিটির মোট শেয়ারের মধ্যে এর অংশ ৬ দশমিক ১২ শতাংশ। গত মাসের শেষ দিনের হিসাবে এসব শেয়ারের বাজারমূল্য ছিল সাড়ে ১০ কোটি টাকারও বেশি। তবে জুনের শেষে কোম্পানিটির দেওয়া তথ্যে দেখা গেছে, বিদেশি বা প্রবাসীরা আর কোনো শেয়ার ধারণ করছেন না।

কোম্পানিটির দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, বিদেশি বা প্রবাসী বাংলাদেশিদের নামে দেখানো শেয়ার গত মাসে বিক্রি হয়েছে, যার পুরোটা গেছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের (পাবলিক) হিসাবে। তালিকাভুক্ত ৩১৭ কোম্পানির মধ্যে ৩০৮টির প্রকাশিত শেয়ার ধারণের হার পর্যালোচনায় দেখা গেছে, ৩৭ কোম্পানি থেকে বিদেশি বা প্রবাসীদের শেয়ার কমেছে। এর মধ্যে লিগ্যাসি ছিল শীর্ষে।

বিদেশি বিনিয়োগে এর বিপরীত চিত্রও দেখা গেছে জুনের পরিসংখ্যানে। গত মে মাস পর্যন্ত বীমা খাতের কোম্পানি প্যারামাউন্টে বিদেশি বা প্রবাসী বাংলাদেশিদের কোনো শেয়ার ছিল না। জুন শেষে কোম্পানিটিতে বিদেশিদের শেয়ার মোটের ৪ শতাংশ ছাড়িয়েছে। সংখ্যার হিসাবে যা ছিল ১৩ লাখ ৩৮ হাজার। এগুলোর গড় বাজারমূল্য পৌনে তিন কোটি টাকা। পর্যালোচনায় দেখা গেছে, প্যারামাউন্ট ইন্স্যুরেন্স ছাড়া তালিকাভুক্ত মোট ১৯ কোম্পানিতে বিদেশি বা প্রবাসীদের শেয়ার বেড়েছে। এসব কোম্পানিতে এদের শেয়ার বেড়েছে সংশ্নিষ্ট কোম্পানির মোট শেয়ার বিবেচনায় শূন্য দশমিক ০১ থেকে শূন্য দশমিক ৯৮ শতাংশ।

মোট শেয়ারে শতাংশের বিচারে গত এক মাসে বৃদ্ধির শীর্ষে থাকা প্যারামাউন্ট ইন্স্যুরেন্সে বিদেশিদের শেয়ার অনেক বাড়লেও জুনে শেয়ারটির দরে এর ইতিবাচক প্রভাব ছিল না। উল্টো মে মাসের শুরুর তুলনায় সোয়া ৫ শতাংশ দর হারিয়েছে। শেয়ার ধারণ বাড়ার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ অবস্থানে থাকা মুন্নু সিরামিকে বিদেশিদের শেয়ার শূন্য দশমিক ৯৮ শতাংশ বা ৩ লাখ ২০ হাজার বেড়ে মোটের ১ দশমিক ০৮ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। যার গড় বাজারমূল্য ছিল প্রায় সাড়ে ছয় কোটি টাকা। গত মাসে শেয়ারটির দর প্রায় সাড়ে ৬ শতাংশ বেড়েছিল। তৃতীয় অবস্থানে থাকা বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্সে এক লাখ ২৮ হাজার শেয়ার বা মোটের শূন্য দশমিক ২৯ শতাংশ বেড়ে শূন্য দশমিক ৪০ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। এটির শেয়ারদর সাড়ে ৩ শতাংশ বেড়েছে।

তবে টাকার অঙ্কে জুনে সবচেয়ে বেশি বিদেশি বিনিয়োগ বেড়েছে গ্রামীণফোনে। কোম্পানিটিতে বিদেশিদের শেয়ার ১৭ লাখ ৫৫ হাজার বেড়েছে, যার বাজারমূল্য অন্তত ৬৪ কোটি টাকা। নতুন বিনিয়োগে এ কোম্পানিতে বিদেশিদের শেয়ার মোটের শূন্য দশমিক ১৩ শতাংশ বেড়ে ৩ দশমিক ৯৮ শতাংশে উন্নীত হয়েছে।

এ হিসাবে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ অবস্থানে ছিল স্কয়ার ফার্মা। কোম্পানিতে বিদেশি বা প্রবাসীদের শেয়ার মোটের শূন্য দশমিক ১০ শতাংশ বা সাত লাখ ৮৯ হাজারটি বেড়েছে, যার বাজারমূল্য প্রায় ২১ কোটি টাকা। জুন শেষে এ কোম্পানিতে বিদেশিদের শেয়ার মোটের ২০ দশমিক ৩৬ শতাংশে উন্নীত হয়েছে।

তৃতীয় অবস্থানে থাকা ব্র্যাক ব্যাংকে বিদেশিদের শেয়ার সোয়া ১৭ লাখ বেড়েছে, যার বাজারমূল্য ছিল প্রায় সাড়ে ১১ কোটি টাকা। চতুর্থ অবস্থানে থাকা অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজে বেড়েছে তিন লাখ ৩৬ হাজার শেয়ার, যার বাজারমূল্য প্রায় আট কোটি টাকা। পঞ্চম অবস্থানে থাকা মুন্নু সিরামিকে বিদেশিরা বিনিয়োগ করেছে প্রায় সাড়ে ছয় কোটি টাকা। শেয়ার বাড়লেও মুন্নু সিরামিক ছাড়া বাকিগুলোর শেয়ারদর কমেছিল।

কমেছে :বিদেশি বা প্রবাসীদের শেয়ার কমায় শীর্ষে থাকা লিগ্যাসি ফুটওয়্যারের পরের অবস্থানে ছিল জিএসপি ফাইন্যান্স ও ইন্টারন্যাশনাল লিজিং। জিএসপি ফাইন্যান্স থেকে ১ দশমিক ২৯ শতাংশ কমে বিদেশিদের শেয়ার মোটের ৪ দশমিক ৮৪ শতাংশে এবং ইন্টারন্যাশনাল লিজিং থেকে ১ দশমিক ২৪ শতাংশ কমে শূন্য দশমিক ০৭ শতাংশে নেমেছে।

এ ছাড়া সিঙ্গার বাংলাদেশ থেকে শূন্য দশমিক ৫৮ শতাংশ কমে ৬ দশমিক ০৬ শতাংশে, বেক্সিমকো ফার্মা থেকে শূন্য দশমিক ৫৬ শতাংশ কমে ৩৭ দশমিক ২৩ শতাংশে, ফনিক্স ফাইন্যান্স থেকে শূন্য দশমিক ৩৯ শতাংশ কমে ১ দশমিক ১৩ শতাংশে নেমেছে।

বিদেশিরা টাকার অঙ্কে সবচেয়ে বেশি বিনিয়োগ তুলে নিয়েছেন ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ (বিএটিবি) থেকে। কোম্পানিটি থেকে তাদের শেয়ার মোটের শূন্য দশমিক ০৯ শতাংশ কমে ১৪ দশমিক ৬০ শতাংশে নেমেছে, যার বাজারমূল্য অন্তত ২২ কোটি টাকা। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ অবস্থানে থাকা বেক্সিমকো ফার্মা থেকে মোটের শূন্য দশমিক ৫৬ শতাংশ কমে ৩৭ দশমিক ২৩ শতাংশে নেমেছে, যার বাজারমূল্য প্রায় ১৯ কোটি টাকা। তৃতীয় সর্বোচ্চ অবস্থানে থাকা সিঙ্গার থেকে কমে যাওয়া শেয়ারের বাজারমূল্য ছিল ১১ কোটি টাকা। অন্যদিকে লিগ্যাসি ফুটওয়্যার থেকে বিদেশিদের কমে যাওয়া শেয়ারের বাজারমূল্য ছিল সাড়ে ১০ কোটি টাকা। এ ছাড়া সিটি ব্যাংকের ৯ কোটি টাকা, রেনেটায় পৌনে ছয় কোটি টাকা, আইডিএলসির সোয়া ৫ কোটি টাকা, ন্যাশনাল ব্যাংকের চার কোটি টাকা এবং ওরিয়ন ফার্মার তিন কোটি টাকা মূল্যের শেয়ার বিক্রি করেছেন বিদেশিরা।

এক থেকে তিন কোটি টাকা বিনিয়োগ কমেছে জিএসপি ফাইন্যান্স, ইন্টারন্যাশনাল লিজিং, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবলস, ইসলামী ব্যাংক, ফনিক্স ফাইন্যান্স ও আইএফআইসির।

শেয়ারবিজনেস24.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: