B-Care Health Services
Global Islami Bank Banking with Faith
Share Business Logo
bangla fonts
facebook twitter google plus rss

অস্তিত্বহীন ওষুধ কোম্পানিতে এখন গার্মেন্টস: শেয়ারদর ১০৯!


২০ সেপ্টেম্বর ২০২২ মঙ্গলবার, ১০:০৬  এএম

স্টাফ রিপোর্টার

শেয়ার বিজনেস24.কম


অস্তিত্বহীন ওষুধ কোম্পানিতে এখন গার্মেন্টস: শেয়ারদর ১০৯!

পুঁজিবাজারে ওটিসি মার্কেটে তালিকাভুক্ত ওষুধ খাতের কোম্পানি বাংলা প্রসেস ইন্ডাস্ট্রিজের শেয়ার লেনদেন হচ্ছে ১০৯ টাকা ৭০ পয়সায়। অথচ এই কোম্পানির কোনো অস্তিত্ব নেই।

তদন্তকারীরা রাজধানীর তেজগাঁও শিল্প এলাকায় গিয়ে কোম্পানির কারখানার কোনো অস্তিত্ব খুঁজে পাননি। পরে কোম্পানির মতিঝিলের মূল অফিসে গিয়ে তদন্তকারীরা জানতে পেরেছেন যে সেটিও কয়েক বছর ধরে তালাবদ্ধ।

ওভার দ্য কাউন্টার (ওটিসি) মার্কেট থেকে অল্টারনেটিভ ট্রেডিং বোর্ডে (এটিবি) স্থানান্তর হবে বাংলা প্রসেস ইন্ডাস্ট্রিজ। প্রায় ২০ বছর আগে নিবন্ধিত ঠিকানায় বাংলা প্রসেস ইন্ডাস্ট্রিজের অস্তিত্ব ছিল। এখন ওই ঠিকানায় একটি গার্মেন্টস ফ্যাক্টরি অবস্থিত।

সম্প্রতি বাংলা প্রসেস ইন্ডাস্ট্রিজের কারখানা পরিদর্শন করে পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনকে (বিএসইসি) এমনই তথ্য জানিয়েছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)।

আর ওই তথ্যের ভিত্তিতে বাংলা প্রসেস ইন্ডাস্ট্রিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ পরিচালনা পর্ষদের কাছে ব্যাখ্যা ও প্রয়োজনীয় নথিপত্র চেয়েছে বিএসইসি। একই সঙ্গে ব্যাখ্যাসহ নথিপত্র প্রদানে ব্যর্থ হলে বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ রক্ষার্থে কোম্পানিটির বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলেও জানিয়েছে কমিশন।

গত সপ্তাহে বাংলা প্রসেস ইন্ডাস্ট্রিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ পরিচালনা পর্ষদের কাছে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। একই সঙ্গে বিষয়টি ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই), সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি বাংলাদেশ লিমিটেডের (সিডিবিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালককে অবহিত করা হয়েছে।

এদিকে, বাংলা প্রসেস ইন্ডাস্ট্রিজের কারখানা পরিদর্শনের বিষয়ে ডিএসইর পরিদর্শন প্রতিবেদনে উল্লেখ রয়েছে, কোম্পানিটির সর্বশেষ বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) সর্বশেষ ২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়েছে। এরপর কোম্পানিটির আর কোনো এজিএম হয়নি। কোম্পানিটির উদ্যোক্তা বা পরিচালক ব্যতীত সকল শেয়ারহোল্ডার (যারা কোম্পানিটির পরিশোধিত মূলধনের ৪৮.৭৩ ধারণ করেন) দীর্ঘ সময় ধরে কোনো লভ্যাংশ পাচ্ছেন না। এটা বিনিয়োগকারীদের স্বার্থের জন্য ক্ষতিকর এবং কমিশনের কাছে তা অনাকাঙ্ক্ষিত। ২০১৪ সালের পর থেকে কোম্পানিটি আর নগদ লভ্যাংশ দেয়নি।

এছাড়া, কোম্পানিটি ২০২১ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর জারি করা বিএসইসির নির্দেশনা না মানায় তাদের শেয়ারগুলো এখনও কাগুজে অবস্থা আছে। প্রাথমিক গণপ্রস্তাব (আইপিও), পুনঃপ্রাথমিক গণপ্রস্তাব (আইপিও) ও রাইট শেয়ার ইস্যুর (আরওডি) মাধ্যমে বাংলা প্রসেস ইন্ডাস্ট্রিজ ৩৯ লাখ টাকার পরিশোধিত মূলধন রয়েছে। কোম্পানিটির কোনো সাইনবোর্ড পাওয়া যায়নি।

১৯৯৫ সালের ১৪ জুন দাখিল করা প্রসপেক্টাস অনুযায়ী কোম্পানিটির জমির পরিমাণ ছিল ১.৫ বিঘা। তখন জমির দাম ছিল প্রায় ২ কোটি ৯০ লাখ টাকা। কোম্পানির মুদ্রণ কালি উৎপাদন করত। কোম্পানিটির বার্ষিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কারখানার প্রাঙ্গণ অন্য পক্ষকে ভাড়া দেওয়া হয়েছিল। ফলে, কোম্পানি দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ আছে। এমনকি ডিএসইর সাথে কোনো অফিসিয়াল চিঠিপত্রের সাথে যোগাযোগ বা প্রতিক্রিয়া জানায়নি কোম্পানিটি।

স্থানীয় লোকজন জানিয়েছেন, ১৫-২০ বছর আগে নিবন্ধিত ঠিকানায় বাংলা প্রসেস ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড নামে একটি কারখানা ছিল। কিন্তু, বর্তমানে ওই ঠিকানায় কোনো কারখানার অস্তিত্ব নেই। কোম্পানিটির নিবন্ধিত ঠিকানায় প্যাট্রিয়ট গ্রুপের গার্মেন্টস ফ্যাক্টরির একটি ৬ তলা ভবন অবস্থিত।

বাংলা প্রসেসের বিরুদ্ধে বর্তমানে দুটি সার্টিফিকেট মামলা আছে। এজন্য কমিশন কোম্পানিকে ৬ কোটি ৫১ লাখ টাকা জরিমানা করেছে বলে ডিএসইর পরিদর্শন প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

এদিকে, বাংলা প্রসেস ইন্ডাস্ট্রিজকে বিএসইসি জানিয়েছে, কোম্পানিটির বর্তমান সার্বিক দিক বিবেচনা করে সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ অর্ডিন্যান্স, ১৯৬৯ এর ধারা ১১(২) এর অধীনে প্রয়োজনীয় নথিপত্র এবং প্রাসঙ্গিক কাগজপত্রসহ আপনাদের অবস্থান ব্যাখ্যা করতে নির্দেশ দেওয়া হলো। এ নির্দেশনা পরিপালনে ব্যর্থ হলে কমিশন আইন অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।

এছাড়া, বাংলা প্রসেস ইন্ডাস্ট্রিজের জমির মিউটেশন কপিসহ জমির বিবরণ, উৎপাদন কার্যক্রম বন্ধ হওয়ার পর প্রকাশিত মূল্য সংবেদনশীল তথ্য (পিএসআই), লাইন অব বিজনেস (এলওবি) পরিবর্তন সংক্রান্ত বিবৃতি এবং ট্রেডিং ব্যবসা শুরু করার পর প্রকাশিত পিএসআই, কোম্পানিটি এটিবিতে স্থানান্তরের উদ্যোগ না নেওয়ার কারণ, জমিসহ সম্পত্তি, যন্ত্রাংশ এবং সরঞ্জামের পুনর্মূল্যায়ন প্রতিবেদন, বিগত ৫ বছরের আর্থিক বিবরণী, আইপিও বা আরপিও বা আরওডির মাধ্যমে উত্তলিত অর্থে ব্যবহারের প্রতিবেদন, সমস্ত ঋণের বিবৃতিসহ তার ব্যবহারের রিপোর্ট এবং কারখানার কার্যক্রম বন্ধের বিষয়ে পরিচালনা পর্ষদের সভার কার্যবিবরণী ও প্রাসঙ্গিক নথিপত্র চেয়েছে বিএসইসি।

২০২১ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর ওটিসি মার্কেট বাতিল করার সিদ্ধান্ত নেয় বিএসইসি। ফলে, ওই মার্কেটের আওতাভুক্ত কোম্পানিগুলোকে আর্থিক সক্ষমতা ও ভবিষ্যৎ সম্ভাবনার ভিত্তিতে এসএমই প্ল্যাটফর্ম ও এটিবিতে স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএসইসি। এরই ধারাবাহিকতায় ওটিসি মার্কেট থেকে বাংলা প্রসেস ইন্ডাস্ট্রিজকে এটিবিতে স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। স্থানান্তর প্রক্রিয়া সম্পন্নের আগে আর্থিক সক্ষমতা যাচাই করতে কোম্পানিটির অফিস ও কারখানা পরিদর্শনের সিদ্ধান্ত নেয় কমিশন। এ পরিদর্শন কার্যক্রম পরিচালনার দায়িত্ব দেওয়া হয় ডিএসইকে। ধারাবাহিকতায় ডিএসই কোম্পানিটির অফিস ও কারখানা পরিদর্শন করে বিএসইসি প্রতিবেদন দাখিল করেছে।

বাংলা প্রসেস ইন্ডাস্ট্রিজ পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয় ১৯৮৫ সালে। কোম্পানির পরিশোধিত মূলধন ৮০ লাখ টাকা। সে হিসেবে কোম্পানিটির মোট শেয়ার সংখ্যা ৮ লাখ। এর মধ্যে কোম্পানিটির উদ্যোক্তা পরিচালকের হাতে ৫১.২৮ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের হাতে ৭.২৬ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের ৪১.৪৭ শতাংশ শেয়ার আছে। ডিএসইতে বাংলা প্রসেস ইন্ডাস্ট্রিজের শেয়ার সর্বশেষ ১০৯.৭০ টাকায় লেনদেন হয়েছে।

শেয়ারবিজনেস24.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: