Nahee Aluminum
Share Business Logo
bangla fonts
facebook twitter google plus rss

নেপালে বাংলাদেশের প্রাণ


৩০ জুন ২০১৬ বৃহস্পতিবার, ০৩:৪৭  এএম

শেয়ার বিজনেস24.কম


নেপালে বাংলাদেশের প্রাণ

বাংলাদেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে বিদেশের বাজারেও সফলতার সঙ্গে জায়গা করে নিচ্ছে প্রাণের পণ্য। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে প্রাণের পণ্যের সমাদর দিন দিন বেড়েই চলেছে। সম্প্রতি তারই প্রমাণ মিললো পর্বতের দেশ নেপালে।

নেপালে প্রাণের পণ্যের চাহিদা আকাশচুম্বী। যে কারণে নেপালের সমতল থেকে পর্বতের চূড়া সবখানেই পাওয়া যায় প্রাণের পণ্য। এমনকি পর্বতের চূড়ার টং দোকানগুলোতেও পাওয়া যায় বাংলাদেশের প্রাণের পটেটো ক্র্যাকার্স, ফ্রুটো, লিচু জুসসহ ৩০টি আইটেম।

মজাদার ও তুলনামূলক সস্তা হওয়ায় নেপালে প্রাণের পণ্যের চাহিদা দিন দিন বাড়ছে বলে জানিয়েছেন নেপালস্থ প্রাণের কর্মকর্তারা।

সরেজমিনে দেখা গেছে, নেপালের ললিতপুর জেলার লাকরি বানজারান পাহাড়ের দুই হাজার ফুট উপরে একটি টং দোকান। আরি রানী নামের পাহাড়ি এক নেপালি নারীর ওই টং দোকানে প্রাণের পটেটো ক্র্যাকার্স ও ফ্রুটো জুস এবং স্থানীয় বকরির দুধের চা খেতে দূর-দূরান্ত থেকে লোকজন ভিড় জমিয়েছে।

তার স্বামী কৃষ্ণা থাপা জাগো নিউজকে জানান, প্রতিদিন কমপক্ষে ৫০ প্যাকেট প্রাণের পটেটো চিপস বিক্রি হয়। এছাড়া ফ্রুটো ম্যাঙ্গো জুস ছাড়াও প্রাণের লিচু জুস এখানে খুবই জনপ্রিয়।

থাপা আরো বলেন, নেপালে বাংলাদেশি পণ্যের প্রচুর চাহিদা রয়েছে। বিভিন্ন শপিংমল ও দোকানে গেলেই ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ পণ্য চোখে পড়বে। শুধু নেপালিরাই নয়, ভারত, শ্রীলঙ্কা, মধ্যপ্রাচ্য ছাড়াও ইউরোপ আমেরিকা ও অস্ট্রেলিয়ার পর্যটকদের পছন্দের তালিকার শীর্ষে প্রাণের পণ্য।

নেপালিদের মতো আফগানিস্তান, লেবানিজ, টার্কি, ফিজি, শ্রীলঙ্কা, ভারতীয়দের কাছেও প্রাণের পণ্য ব্যাপক জনপ্রিয়। এসব পণ্যের মধ্যে প্রাণ ফুডস প্রডাক্টের পণ্য সর্বাগ্রে।

নেপালের পাহাড়ে কথা হয় অস্ট্রেলীয় নাগরিক অ্যালান ফেডরিকের সঙ্গে। তিনি জানান, অস্ট্রেলিয়ায় রফতানির কারণে বাংলাদেশের শুধু প্রাণ কোম্পানির নামই শুনেছেন তিনি।

নেপালে বাংলাদেশের প্রাণের বাজার সম্প্রসারণে কাজ করছেন বাংলাদেশ থেকে নিয়োগপ্রাপ্ত প্রায় আড়াইশ কর্মকর্তা। এদের প্রধান হারুন অর রশিদ।

বুধবার তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, প্রতিযোগিতার মার্কেটে মূল্যের পাশাপাশি মান নিশ্চিত করার কারণে প্রাণের পণ্যের চাহিদা নেপালে ক্রমশই বাড়ছে। নেপালের ৭৫ জেলার প্রায় সবগুলোতেই প্রাণের পণ্য পাওয়া যায়। এর মধ্যে পোখারা, দারান, বক্সপুর, কাঠমান্ডু, নেপালগঞ্জ ও ললিতপুরে প্রাণের পণ্যের চাহিদা অন্যতম।

শেয়ারবিজনেস24.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: