Runner Automobiles
Sea Pearl Beach Resort & SPA Ltd
Share Business Logo
bangla fonts
facebook twitter google plus rss

যেসব ইতিবাচক সিদ্ধান্তের প্রতিফলন শেয়ারবাজারে


০৬ মে ২০১৯ সোমবার, ০১:০৮  পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক


যেসব ইতিবাচক সিদ্ধান্তের প্রতিফলন শেয়ারবাজারে

নানা প্রণোদনার আশ্বাসে ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে শেয়ারবাজার। সর্বশেষ তিন কার্যদিবসে প্রধান শেয়ারবাজার ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স ২১৯ পয়েন্ট বা সোয়া ৪ শতাংশ বেড়েছে। এর মধ্যে গতকাল রোববারই সূচকটি ১০৮ পয়েন্ট বা ২ শতাংশ বেড়ে প্রায় ৫৩৯৫ পয়েন্টে উঠেছে। এক দিনে সূচকের এত বড় উত্থান গত ৮ জানুয়ারির পর সর্বোচ্চ। গতকাল ডিএসইতে প্রায় ৮৫ শতাংশ এবং অপর শেয়ারবাজার সিএসইতে ৮৪ শতাংশ শেয়ারের বাজারদর বেড়েছে।

এর আগে গত ২৭ জানুয়ারি থেকে গত ২৯ এপ্রিল পর্যন্ত লাগাতার দরপতন হয়েছিল শেয়ারবাজারে, যা ছিল স্মরণকালের এ দীর্ঘ দরপতন। এতে প্রায় ৯৫ শতাংশ শেয়ার গড়ে ১৬ শতাংশ করে দর হারায়। উল্লেখযোগ্য সংখ্যক শেয়ারের দর অর্ধেকে নেমে যায়। এ নিয়ে নানা আলোচনা-সমালোচনার পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালসহ সংশ্নিষ্ট সকল পক্ষকে নিয়ে বৈঠক করেন। ওই বৈঠকের পর বাজেটে শেয়ারবাজারের জন্য প্রণোদনা থাকার আশ্বাস দেন অর্থমন্ত্রী।

এ ছাড়া নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি আইপিও, প্লেসমেন্ট শেয়ার বিক্রি সংক্রান্ত মৌলিক আইনের সংস্কার আনার ঘোষণা দেয়। একই সঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে ২০১০ সালের দরপতনে ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের জন্য গঠিত সরকারের ৯০০ কোটি টাকার পুনঃঅর্থায়ন তহবিলকে ঘূর্ণায়মান তহবিলে রূপান্তরের প্রস্তাব করা হয়, অর্থ মন্ত্রণালয় এরই মধ্যে তা অনুমোদন করেছে। এসব পদক্ষেপের সার্বিক প্রভাবে শেয়ারবাজার ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বলে মনে করছেন শেয়ারবাজার সংশ্নিষ্টরা।

পর্যালোচনায় দেখা গেছে, বাজার ঘুরে দাঁড়ানোর দিকে যেতেই আবারও কিছু শেয়ারের দর হুহু করে বাড়ছে। গতকাল অন্তত ২৬ কোম্পানির শেয়ার ও দুটি মিউচুয়াল ফান্ড দিনের সার্কিট ব্রেকারের সর্বোচ্চ দরে কেনাবেচা হয়েছে। এর মধ্যে লেনদেনের শেষ পর্যন্ত ১৭টি বিক্রেতাশূন্য ছিল। এর আগে গত বৃহস্পতিবার ডিএসইতে ৩৪ কোম্পানির শেয়ার সার্কিট ব্রেকারের সর্বোচ্চ দরে কেনাবেচা হয়। এগুলোর মধ্যে ভালো-মন্দ দুই শ্রেণির শেয়ার রয়েছে।

গতকাল সার্কিট ব্রেকারের সর্বোচ্চ দরে কেনাবেচা হওয়া শেয়ার হলো বেক্সিমকো সিনথেটিকস, দেশবন্ধু পলিমার, ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্স, ফ্যামিলিটেক্স, এফএএস ফাইন্যান্স, জনতা ইন্স্যুরেন্স, লিগ্যাসি ফুটওয়্যার, মুন্নু স্টাফেলার্স, ন্যাশনাল ফিড মিল, অলিম্পিক এক্সেসরিজ, পিপলস লিজিং, প্রাইম ইন্স্যুরেন্স, প্রভাতী ইন্স্যুরেন্স, কাশেম ইন্ডাস্ট্রিজ, আরএন স্পিনিং, শাশা ডেনিম ও ইয়াকিন পলিমার। লেনদেনের বড় অংশে সার্কিট ব্রেকারের সর্বোচ্চ দরে কেনাবেচা হওয়া বাকি ৯ শেয়ার হলো বার্জার পেইন্টস, ঢাকা ডাইং, জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশনস, ইন্টারন্যাশনাল লিজিং, ইমাম বাটন, খুলনা প্রিন্টিং অ্যান্ড প্যাকেজিং, ফনিক্স ফাইন্যান্স, শ্যামপুর সুগার মিলস এবং সোনারবাংলা ইন্স্যুরেন্স। এমন দরে কেনাবেচা হওয়া দুই মিউচুয়াল হলো প্রাইম ফাইন্যান্স প্রথম ও এক্সিম ব্যাংক প্রথম মিউচুয়াল ফান্ড।

খাতওয়ারি পর্যালোচনায় দেখা গেছে, সার্বিক হিসাবে পাট এবং বিবিধ খাতের ১৬ কোম্পানির শেয়ার গড়ে ৫ শতাংশ হারে বেড়েছে। বড় খাতগুলোর মধ্যে বীমা খাতের ৪৭ কোম্পানির মধ্যে ৪৫টিরই দর বাড়ায় খাতটির সার্বিক শেয়ারদর বেড়েছে ৩ দশমিক ৬৫ শতাংশ হারে। এ ছাড়া ব্যাংক খাতের ২ দশমিক ১৫ শতাংশ, ব্যাংক-বহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠান খাতের ৩ দশমিক ৩৯ শতাংশ হারে দর বেড়েছে। উৎপাদন ও সেবামুখী কোম্পানির মধ্যে প্রকৌশল খাতের শেয়ারগুলো প্রায় আড়াই শতাংশ, বস্ত্র খাতের দেড় শতাংশ, জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতের শেয়ারগুলোর গড়ে সোয়া ১ শতাংশ দর বেড়েছে।

তবে সূচক বৃদ্ধিতে একক খাত হিসেবে ব্যাংকের কারণে ডিএসইএক্স সূচক বেড়েছে ৩৪ পয়েন্ট। খাদ্য ও আনুষঙ্গিক খাতের কারণে ১৬ পয়েন্ট, প্রকৌশল খাতের কারণে ৯ পয়েন্ট বেড়েছে। একক কোম্পানি হিসেবে ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশের শেয়ারদর বৃদ্ধিতে সূচক বেড়েছে ১৪ পয়েন্টেরও বেশি। এছাড়া সিটি, ন্যাশনাল, ব্র্যাক, ইসলামী ও ইউনাইটেড ব্যাংক, স্কয়ার ফার্মা, ইউনাইটেড পাওয়ার, ইফাদ অটোস সূচক বৃদ্ধিতে সর্বাধিক ভূমিকা রেখেছে।

ডিএসইর পরিচালক মিনহাজ মান্নান ইমন বলেন, শেয়ারবাজারের দীর্ঘ সময়ের যে সংকট ছিল, তা সমাধানে সরকার ও নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইতিবাচক পদক্ষেপ নিয়েছে। বিনিয়োগকারীরা এসব পদক্ষেপে আশ্বস্ত হয়েছেন। তারই প্রতিফলন বাজারে দেখা যাচ্ছে। তবে দীর্ঘ তিন মাসে ডিএসইএক্স সূচক ৭৭৫ পয়েন্ট পতনের পর মাত্র তিন দিনে ২১৯ পয়েন্ট বৃদ্ধি নিয়ে বাজার সংশ্নিষ্ট ও বিনিয়োগকারীদের মধ্যে কিছুটা অস্বস্তি আছে বলেও স্বীকার করেন তিনি। এ অবস্থায় রুগ্‌ণ কোম্পানির শেয়ার পরিহার করে মৌলভিত্তির শেয়ার যৌক্তিক মূল্যে কেনার আহ্বান জানান তিনি।

শেয়ারবিজনেস24.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: