Nahee Aluminum
Share Business Logo
bangla fonts
facebook twitter google plus rss

ইলিশের দাম বাড়ছে


০৭ এপ্রিল ২০১৭ শুক্রবার, ০৭:০৪  পিএম

শেয়ার বিজনেস24.কম


ইলিশের দাম বাড়ছে

পহেলা বৈশাখকে সামনে রেখে এক সপ্তাহের ব্যবধানে রাজধানীর কাঁচাবাজারগুলোতে ধীরে ধীরে বাড়ছে ইলিশ মাছের দাম।

শুক্রবার একাধিক কাঁচাবাজার ঘুরে অন্যান্য মাছের দাম অপরিবর্তিত থাকলেও দেখা গেলেও বাড়তি ছিল ইলিশের দাম। এছাড়া গত সপ্তাহের ব্যবধানে গরু ও খাসির মাংসের দাম কিছুটা কমলেও বেড়েছে ব্রয়লার মুরগির দাম।

বাজারগুলোয় ৬০০ গ্রাম ওজনের প্রতিটি ইলিশের দাম গত সপ্তাহের তুলনায় ২০০ থেকে ২৫০ টাকা বেড়েছে।

রাজধানীর মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেট কাঁচাবাজারের মাছ বিক্রেতা অখিল রাজমুন্সি জানান, গত সপ্তাহে ইলিশ (৬০০ গ্রাম) বিক্রি হয়েছে ৪০০ থেকে ৪৫০ টাকায়। বর্তমানে এর মূল্য ৬০০ থেকে ৬৫০ টাকা।

তিনি বলেন, “(ইলিশ) মাছের যোগান এখন কমে গেছে, তাই দাম বাড়ছে। সামনে আরো কমবে।  আগে এই সময়ে বাজারে প্রচুর জাটকা আসত। এখন অভিযান এর কারণে ওইটার সাপ্লাই ও কমে গেছে।”

সামনে পহেলা বৈশাখে দাম আরো বাড়তে পারে কি না জানতে চাইলে আদাবর কাঁচাবাজারের মাছ বিক্রেতা মো. জনি বলেন, “পহেলা বৈশাখের ইলিশ বিক্রি শুরু হয় ১০ তারিখ (১০ এপ্রিল) থেইকা। এই বছর কেমন বেচা-বিক্রি হইব তা জানি না, তবে অন্যান্য বছরের তুলনায় পাবলিক গতবছর (পয়লা বৈশাখ উপলক্ষে) ইলিশ অনেক কম কিনসিল।”

তবে নববর্ষের প্রথম দিনে খাদ্য তালিকায় ইলিশের বিষয়ে বিরক্তি প্রকাশ করেছেন একটি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থায় চাকরিরত মুনতাসির আহমেদ।

মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেটে বাজার করতে আসা মুনতাসির বলেন, “একে তো পহেলা বৈশাখে ইলিশ নিয়ে বাঙ্গালির আদিখ্যেতা আছে, তার ওপর এই নববর্ষকে ঘিরে সুপারশপগুলোর ব্যবসা দেখলে মেজাজ খারাপ হয়। গতকাল একটি সুপারশপে দেখলাম একটা সাধারণ সাইজের ইলিশের দাম এক হাজার ৫০ টাকা।”

অন্যান্য মাছের মধ্যে পাবদা ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা, রুই ২৫০ থেকে ৩৫০ টাকা, কাতল ২২০ থেকে ৩২০ টাকা, শিং (আকার ভেদে) ৪০০ থেকে ৬৫০, মাগুর ৫০০ টাকা, শোল ৫০০ টাকা, টেংরা ৪০০ টাকা থেকে ৫০০ টাকা, চিংড়ি (মাঝারি) ৪০০ টাকা এবং কাচকি ৩৫০ থেকে ৪০০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা যায়।

মাংসের মধ্যে এক সপ্তাহের ব্যবধানে গরু ও খাসির মাংসের দাম কিছুটা কমেছে। প্রতি কেজি গরুর মাংস ৫০০ টাকা থেকে কমে হয়েছে ৪৮০ টাকা। খাসির মাংস ৮০০ টাকা থেকে ৭০০ থেকে ৭৫০ টাকায় নেমেছে। দেশি মুরগি প্রতিটি বিক্রি হচ্ছে ৩৮০ থেকে ৪০০ টাকা, পাকিস্তানি কক ২২০ থেকে ২৫০ টাকা।

তবে কিছুটা বেড়েছে ব্রয়লার মুরগির দাম; ১৪০ টাকা থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৬০ টাকায়।

এছাড়া সবজির মধ্যে ঝিঙা ৬০ টাকা, পটল ৫০ টাকা, চিচিঙা ৫০ টাকা, কচুর লতি ৬০ টাকা, করলা (ছোট) ৬০ টাকা, করলা (বড়) ৫০ টাকা এবং বেগুন ৫০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা যায়।

শেয়ারবিজনেস24.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: